Barisal TSC
Barisal TSC
Barisal TSC

Principal

Principal's Message
S.M. Tarikul Islam

Principal

বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ বরিশাল জেলা সদরের প্রানকেন্দ্রে অত্যান্ত মনোরম ও প্রাকৃতিক পরিবেশে অবস্থিত। ১৯০১সালে ১০একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত জেলার একমাত্র সরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শুরুতে প্রতিষ্ঠানটি “ভোকেশনাল ট্রেনিং ইন্সটিউিট বা ভিটিআই ” নাম করনে ৪০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে যাত্রা শুরু করে। পরবর্তী কালে ১৯৮৬ সালে জাতীয় দক্ষতা মানে উনড়বীত হয়।বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং দেশের বেশির ভাগ মানুষকে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত ও দক্ষ জনবলে পরিনত করার জন্য সাধারণ ও কারিগরি শিক্ষার সময়ে ১৯৯৫ সালে ২ বছর মেয়াদী এস.এস.সি (ভোকেশনাল) এবং ১৯৯৭ সালেএইচ.এস.সি(ভোকেশনাল) শিক্ষা কার্যμম চালু করা হয়। ২০০৩ সালে “ভোকেশনাল ট্রেনিং ইন্সটিউিট বা ভিটিআই ” “বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ ” নামে পরিচিতি লাভ করে। বর্তমানে নানা সীমাবদ্ধতা সত্তে¡ও বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে ৮ বিষয়ে সার্টিফিকেট কোর্স ও দুই শিফটে ১৪০০শত জন শিক্ষার্থী এবং ২০১৬ সালে ১ বিষয়ে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ৬০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে কারিগরি শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে এগিয়ে চলছে। শিক্ষার্থী কারিগরি বিষয় ভিত্তিক পড়াশুনা করে আত্মকর্মসংস্থান, দেশ ও বিদেশে বহুমুখী চাকুরীতে প্রবেশ করা সহ উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এদেশকে মধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত করতে অবদান অব্যাহত রাখবে। মানোনীয় প্রধাণমন্ত্রী ভিশন “২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশ” শ্লোগানকে এগিয়ে নিতে বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ সহায়ক ভুমিকা পালন করবে।

“একাবিংশ শতব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায়, সমাধান একমাত্র কারিগরি শিক্ষায়।”

প্রকৌশলী এস এম তরিকুল ইসলাম

অধ্যক্ষ

Details...

Barisal Technical School and College, Barisal.

বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ বরিশাল শহরের প্রানকেন্দ্রে মনোরম ও প্রাকৃতিক পরিবেশে অবস্থিত। ১৯০১সালে ১০একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত জেলার একমাত্র সরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শুরুতে প্রতিষ্ঠানটি “ভোকেশনাল ট্রেনিং ইন্সটিউিট বা ভিটিআই ” নাম করনে ৪০জন শিক্ষার্থী নিয়ে যাত্রা শুরু করে। পরবর্তী কালে ১৯৮৬ সালে জাতীয় দক্ষতা মানে উনড়বীত হয়।বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং দেশের বেশির ভাগ মানুষকে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত ও দক্ষ জনবলে পরিনত করার জন্য সাধারণ ও কারিগরি শিক্ষার সময়ে ১৯৯৫ সালে ২ বছর মেয়াদী এস.এস.সি (ভোকেশনাল) এবং ১৯৯৭ সালে এইচ.এস.সি(ভোকেশনাল) শিক্ষা কার্যক্রম চালু করা হয়। ১৯০১ সালে “ভোকেশনাল ট্রেনিং ইন্সটিউিট বা ভিটিআই ” “বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ ” নামে পরিচিতি লাভ করে। বর্তমানে নানা সীমাবদ্ধতা সত্তে¡ও বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে ৮ বিষয়ে সার্টিফিকেট কোর্স ও দুই শিফটে ১৪০০শত জন শিক্ষার্থী এবং ২০১৬ সালে ১ বিষয়ে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ৬০জন শিক্ষার্থী নিয়ে কারিগরি শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে এগিয়ে চলছে। শিক্ষার্থী কারিগরি বিষয় ভিত্তিক পড়াশুনা করে আত্মকর্মসংস্থান, দেশ ও বিদেশে বহুমুখী চাকুরীতে প্রবেশ করা সহ উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এদেশকে মধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত করতে অবদান অব্যাহত রাখবে। মানোনীয় প্রধাণমন্ত্রী ভিশন “২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশ” শ্লোগানকে এগিয়ে নিতে বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ সহায়ক ভুমিকা পালন করবে। “একাবিংশ শতব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায়, সমাধান একমাত্র কারিগরি শিক্ষায়।”

Visitor Comments

বরিশাল সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ নীলফামারী জেলা সদরের উকিলের মোড়ে -বাংলাদেশ পানি উনড়বয়ন বোর্ড এর পূর্ব পাশে অত্যন্ত মনোরম ও প্রাকৃতিক পরিবেশে অবস্থিত।

Name: প্রকৌশলী এ.কে.এম মোস্তাফিজুর রহমান

Our Video

Colaboration with